সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে গুলশান লেক

0

জাগো বাংলা ডেস্ক
উন্নয়নের নামে সংকীর্ণ করে ফেলা হচ্ছে রাজধানীর গুলশান লেক। অভিযোগ উঠেছে উন্নয়নের নামে দুই তীর ভরাট করে মূল জলাশয়কে তিনভাগের একভাগে নামিয়ে আনা হয়েছে। পরিবেশবিদরা জানায়, দখলমুক্ত না করে তীর চূড়ান্ত করলে পার পেয়ে যাবে ভূমিদস্যুরা।

গুলশান লেকের রয়েছে তিনটি শাখা। একটি হাতিরঝিল থেকে গুলশান হয়ে বনানী, দ্বিতীয়টি বাড্ডা হয়ে বারিধারা আর তৃতীয়টি কুড়িল হয়ে বয়ে গেছে বনানী কবরস্থানের পাশ দিয়ে।

আশির দশকেও প্রায় আটশো মিটার প্রশস্ত ছিলো লেকটি। পরবর্তী সময় দফায় দফায় ভরাট হয়ে সর্বোচ্চ ৪শ ১০ মিটার থেকে দেড়শো মিটারে নেমে এসেছে। ভরাট করে উঁচু ভবনও বানিয়ে ফেলেছে দখলদারেরা।

গুলশান লেক উন্নয়নে ২০১০ সালে ৩শ কোটি টাকার প্রকল্প নেয় রাজউক। প্রকল্পে প্রায় সাড়ে আট কিলোমিটার লেকের দুপাশে হাঁটার পথ নির্মাণ ও সৌন্দর্য বাড়ানো উদ্যোগ নেয়া হয়।

তবে পরিবেশবিদদের অভিযোগ, এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করে দখলদারদের বৈধতা দেয়ার চেষ্টা করছে রাজউক। একইসঙ্গে নতুন করে তীর নির্মাণের নামে সুযোগ তৈরি করা হচ্ছে প্লট বাণিজ্যের।

অবৈধ ভবন মালিকদের বিষয়ে আদালতের একাধিক নির্দেশনা থাকলেও রাজউক জানায়, প্রয়োজনে তা অধিগ্রহণ করা হবে। ২০২১ সালের মধ্যে শেষ হবার কথা রয়েছে প্রকল্পের কাজ।

রাজউক আরও জানায়, হাতিরঝিলের আদলে গড়ে তোলা হবে রাজধানীর প্রতিটি জলাশয়। দখলদারদের সঙ্গে আইনি লড়াই চালানোর পাশাপাশি নতুন করে দখল ঠেকাতেই নেয়া হয়েছে এ প্রকল্প।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here