আজ ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস

0

আজ ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১৯৭২ সালের এই দিনে সব ষড়যন্ত্রের জাল ভেদ করে পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে দেশে ফিরে আসেন স্বাধীন দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বিশ্লেষকদের মতে, একাত্তরের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও মুক্তি সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী নেতা ফিরে আসায়, বাঙালির স্বাধীনতা পূর্ণতা পায় ১০ জানুয়ারি।

বাংলার কৃষক-শ্রমিক আর সাধারণ মানুষের এক মহান গেরিলা যুদ্ধে, ৯ মাসের মাথায় পরাজয় ঘটে অত্যাচারী পাকিস্তান শাসনের। কিন্তু বাঙ্গালির এই স্বাধীনতার মূলনায়ক তখনো ফিরে আসেন নি তাদের মাঝে। পরাজয়ের পরও,বন্দি শেখ মুজিবকে সসম্মানে স্বাধীন দেশে ফেরত পাঠাতে গড়িমসি করছে পাকিস্তান। বঙ্গবন্ধু নিজেও জানতেন, পরাজিত ভুট্টোর কাছে মাথা নোয়ানোর কিছু নেই।

বসে থাকেন নি স্বাধীন বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার। তারাও জানতেন, বঙ্গবন্ধু ফিরে না আসা পর্যন্ত পূর্ণতা পাবে না বাঙালির স্বাধীনতা।

অবশেষে, আন্তর্জাতিক চাপে বাধ্য হয়ে বঙ্গবন্ধুকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তানিরা। লন্ডন-দিল্লি হয়ে যে দিন স্বাধীন বাংলার মাটিতে পা রাখেন। সেদিন বাংলাদেশে ছিল এক মহা উৎসবের আমেজ। বঙ্গবন্ধুকে স্বাগত জানাতে লাখ লাখ মানুষ জড়ো হয় বিমানবন্দরে। গোটা জাতি জয় বাংলা স্লোগানে স্বাগত জানায় অবিসংবাদিত নেতাকে। প্রিয় স্বদেশে ফিরে এসে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন বাঙ্গালীর প্রিয় নেতাও।

মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ককে ফিরে পেয়ে পূর্ণতা পেল বাঙ্গালীর হাজার বছরের স্বাধীনতা সংগ্রাম।

বঙ্গবন্ধুর এ প্রত্যাবর্তন যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশকে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য ঐক্যবদ্ধ করেছিল বলে অভিমত ইতিহাসবিদদের।

জাতির জনকের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ‘অন্ধকার থেকে আলোতে ফিরে আসার বার্তা। তাই দিনটি স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে প্রতিরোধে নতুন করে শপথ নেয়ার দিন বলেও মনে করেন বিশিষ্টজনেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here