সেন্টমার্টিনের জনপ্রিয় কয়েকটি রিসোর্ট

0

ভ্রমণের জন্য বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর স্থান সেন্টমার্টিন। পর্যটকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে সবসময়ই থাকে ‘বঙ্গোপসাগরের টিপ’ বলে খ্যাত এ দ্বীপ। তবে রাত যাপনের জন্য দ্বীপে হোটেল বা রিসোর্ট ঠিক করতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হয় অনেককেই। তাদের সুবিধার্থে কয়েকটি হোটেল ও রিসোর্টের পরিচিতি তুলে ধরা হয়েছে।

ব্লু মেরিন
জেটি থেকে সামান্য দূরে অবস্থিত হোটেলটির অবকাঠামো চমৎকার। তিন তলা বিশিষ্ট এ হোটেলে ৩৪টি বিলাস বহুল রুমসহ নিজস্ব রেস্টুরেন্ট রয়েছে। বাজারের কাছে বলে এর আশপাশে মানুষের সমাগম খুব বেশি। এছাড়া রুম থেকে সরাসরি বিচ দেখা যায় না। রুম ভাড়া ২,৫০০-৩,৫০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৭১৩৩৯৯০০০ (ঢাকা), ০১৭১৩৩৯৯২৫০ (সেন্টমার্টিন)।

সী ভিউ
জেটি থেকে ৭ মিনিট হাঁটতে হয়। এখানে নিজস্ব রেস্টুরেন্টসহ ১৬টি রুম ও ৪টি তাবু রয়েছে। এর অধিকাংশ রুম থেকে সমুদ্র দেখা যায়। এছাড়া ফ্রি ওয়াইফাই ও স্পোর্টসের সুবিধা রয়েছে। তবে নিজস্ব রেস্টুরেন্টটি প্রায় ত্রিশ মিটার দূরে অবস্থিত। রুমের ভাড়া ১,২০০-৩,০০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৮৪০৪৭৭৭০৭ (ঢাকা), ০১৮৪০৪৭৭৯৫৬ (সেন্টমার্টিন)।

নীল দিগন্ত
দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত রিসোর্টটির রুমের সংখ্যা ৩৮টি। রেস্টুরেন্টও রয়েছে এখানে। এর সব রুমই টিনশেড। রুমভাড়া ২,০০০-৪,৫০০ টাকা। তবে জেটি থেকে দূরে হওয়ায় ভ্যান ভাড়া পরে ২শ’ টাকা। এছাড়া রুম থেকে বিচ দেখারও সুযোগ নেই। অন্যান্য সবকিছু ঠিকঠাক আছে। যোগাযোগ: ০১৭৩০০৫১০০৫, ০১৭৩০০৫১০০৬, ০১৭৩০০৫১০০৭।

লাবিবা বিলাস
রিসোর্টের ৪৩টি রুম, একটি রেস্টুরেন্ট ও একটি ছোট্ট সেমিনার রুম রয়েছে। এর অবস্থান নর্থ বিচে। শিপঘাট থেকে যেতে একটু বেশি সময় লাগে, তবে হাঁটাপথে ১৫-২০ মিনিট। রুম ভাড়া ১,৬০০-৪,০০০ টাকা। রিসোর্টে সবরকম আধুনিক সুবিধার পাশাপাশি খেলাধুলার ব্যবস্থা রয়েছে। যোগাযোগ: ০১৭৪৪১৩৬১৪৫ (ঢাকা), ০১৮৩৪২৬৭৯২২ (সেন্টমার্টিন)।

প্রাসাদ প্যারাডাইজ
এর অবস্থান ব্লু মেরিনের কিছুটা উত্তরে। এখানে মোট ১৬টি কক্ষ। হোটেলের সাথে রেস্টুরেন্টও আছে। বিচ থেকে একটু দূরে বলে অল্প কয়েকটি রুম থেকে সমুদ্রের কিছুটা দেখা যায়। প্রতি রুমের ভাড়া ২,০০০-৪,০০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৫৫৬৩৪৭৭১১।

সী ইন
সেন্টমার্টিন বাজারের মূল রাস্তা ধরে পাঁচ মিনিট হাঁটলেই এর অবস্থান। এতে ২৬টি কক্ষ রয়েছে। নিজস্ব রেস্টুরেন্ট নেই, তবে আশেপাশে রয়েছে। প্রতি রুমের ভাড়া ২,০০০-৩,৫০০ টাকা। এখান থেকে সমুদ্র দেখার কোনো উপায় নেই। নির্জনতা উপভোগের সুযোগও কম। যোগাযোগ: ০১৭২২১০৯৬৭০, ০১৭৩৫৫৮১২৫১, ০১৭৭৫০১১২০৮।

সীমানা পেরিয়ে
এর অবস্থান ওয়েস্ট বিচে, ভ্যানে করে যেতে হয়। এতে ১৪টি রুম ও একটি রেস্টুরেন্ট আছে। বিচের কাছাকাছি বলে কয়েকটি রুম থেকে সমুদ্র দেখা যায়। এর ভাড়া ১,৫০০-২,৫০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৯১১১২১২৯২, ০১৮১৯০১৮০২৭।

কোরাল ভিউ
রিসোর্টটি নৌবাহিনী পরিচালনা করে। ইস্ট বিচে এর অবস্থান। জেটি থেকে দূরে বলে ভ্যান বা বোট নিয়ে যেতে হয়। এর আয়তন অনেক বড়ো এবং রুম থেকে সমুদ্র দেখা যায়। রিসোর্টের সামনে একটি সবুজ মাঠ রয়েছে। একে হেলিপ্যাড হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আছে নিজস্ব রেস্টুরেন্ট। রুমপ্রতি ভাড়া ২,৫০০-৬,০০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৯৮০০০৪৭৭৭, ০১৯৮০০০৪৭৭৮।

প্রিন্স হ্যাভেন
নর্থ বিচের পাশে এর অবস্থান। এখান থেকে সমুদ্র বেশ ভালো দেখা যায়। রিসোর্টে ২৪টি কক্ষ ও রেস্টুরেন্ট আছে। কক্ষগুলোর ভাড়া ২,০০০-৪,০০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৮৩৩৩৬০৩৩৩।

সী প্রবাল
নর্থ বিচের রিসোর্টটি সী ভিউ থেকে সামান্য দূরে। এখানে ১৬টি রুম ও একটি রেস্টুরেন্ট আছে। এর চারটি রুম ছাড়া অন্য রুম থেকে সমুদ্র দেখার উপায় নেই। প্রতিটি রুমের ভাড়া ১,৫০০-২,৫০০ টাকা। যোগাযোগ: ০১৮১৬৪৬৭৪০৬, ০১৭৬১২০০৬৮৯।

সেন্টমার্টিনে হোটেল বা রিসোর্ট বুকিং দেওয়ার সময় এর অবস্থান, দূরত্ব, রেস্টুরেন্ট, নিরাপত্তা ইত্যাদি দেখে নেওয়া ভালো। রুম ভাড়ার ক্ষেত্রেও ভালোভাবে দরদাম করা উচিত। তবে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে জানুয়ারির মাঝামাঝি পর্যন্ত রুম ভাড়া বেশি থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here