বরিশালে শুক্র-শনিবার বন্ধ থাকবে সব কোচিং সেন্টার

0

বরিশালে সপ্তাহে দুদিন কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। এদিকে প্রতিষ্ঠানেই শিক্ষার্থীদের যথাযথ শিক্ষা দেয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা পাঠিয়েছে বরিশাল শিক্ষাবোর্ড। বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন সুধী সমাজ।

অপরদিকে অভিভাবকরা বলছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা যথাযথ শিক্ষা না পাওয়ায় কোচিং সেন্টারের দিকে ঝুঁকছেন তারা।

বরিশালে জমজমাট কোচিং বাণিজ্য। স্কুল বন্ধ থাকলেও বন্ধ নেই কোচিং। বেশির ভাগ অভিভাবকের বিদ্যালয়ের চেয়ে কোচিং এ আগ্রহ বেশি। বিকেলটা শিশুদের খেলার সময়। কিন্তু সে সময় কোচিং এ যাবার কারণে শিশুরা বঞ্চিত হচ্ছে। এ অবস্থায় শিশুদের খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চার সুযোগ দিতে সপ্তাহে দুদিন কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘শুক্রবার এবং শনিবার কোনো কোচিং সেন্টার চলবে না। এই দুইটা দিন বাচ্চারা খেলাধুলা করবে। যাতে একটা সজীব সতেজ মন নিয়ে শনিবার অথবা রোববার থেকে আবারও তারা স্কুলে যেতে পারে।’

এদিকে প্রতিষ্ঠানেই শিক্ষার্থীদের যথাযথ শিক্ষা দেয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা পাঠানোর কথা জানিয়েছেন বরিশাল শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. জিয়াউল হক।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যেনো আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো থেকেই যথাযথ শিক্ষা লাভ করতে পারেন সেজন্য আমরা প্রতিষ্ঠান গুলোকে নির্দেশনা দিয়েছি।’

বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন সুধী সমাজ। তবে কোচিং সেন্টার গুলো এ নির্দেশ মানতে নারাজ।

শিশু সংগঠক শুভংকর চক্রবর্তী বলেন, ‘এই উদ্যোগ একদিন পুরোপুরি ভাবে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করতে উৎসাহিত করবে এবং আমাদের শিশুরা প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হবে।’

শিক্ষণ একাডেমি কোচিং সেন্টারের পরিচালক বাবুল সরকার বলেন, ‘জেলা প্রশাসক মহাদয়ের কাছে অনুরোধ রাখতে চাই যে একদিন কোচিং বন্ধ রেখে অন্যদিন শুধু পরীক্ষা দেয়ার অনুমতি যেনো দেয়া হয়। এতে বাচ্চারাও উপকৃত হবে।’

অপরদিকে অভিভাবকরা বলছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা যথাযথ শিক্ষা না পাওয়ার কারণে কোচিং সেন্টারের দিকে ঝুঁকছেন তারা।

বরিশালে শতাধিক কোচিং সেন্টার রয়েছে। আর এসব কোচিং সেন্টারে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ত্রিশ হাজারের বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here